Home চাকরি আবার WBPSC এই পদে কর্মী নিয়োগ করছে, কারা আবেদন করতে পারবে?

আবার WBPSC এই পদে কর্মী নিয়োগ করছে, কারা আবেদন করতে পারবে?

0
আবার WBPSC এই পদে কর্মী নিয়োগ করছে, কারা আবেদন করতে পারবে?
আবার WBPSC এই পদে কর্মী নিয়োগ করছে, কারা আবেদন করতে পারবে?

পশ্চিমবঙ্গের সবচেয়ে সাম্মানিক ও পাওয়ারফুল রিক্রুটমেন্ট সংস্থা পশ্চিমবঙ্গ পাবলিক সার্ভিস কমিশন সম্প্রতি ট্রান্সলেটর পদে যোগ্য প্রার্থীদের নিয়োগ করার জন্য একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে। ইচ্ছুক চাকরি প্রার্থী যারা বাঙালি, নেপালি অথবা সাঁওতালি ভাষার ট্রান্সলেটর পদে চাকরি করতে চাইছেন তাদেরকে ২৪ শে অক্টোবর ২০২৩ এর আগে অফিসিয়াল ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে। নারী-পুরুষ নির্বিশেষে পশ্চিমবঙ্গের যেকোনো যোগ্য চাকরিপ্রার্থী এই পদের জন্য আবেদন করতে পারবে। সুতরাং আর কথা না বাড়িয়ে চলুন, এই রিক্রুটমেন্ট সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা নেওয়া যাক।

ভ্যাকান্সি ডিটেলস

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের Law department এর অন্তর্গত তিনটি ভাষার জন্য ট্রান্সলেটর নিয়োগ করছে। যেখানে বাংলা ভাষার জন্য মোট শূন্য পদ ৩ টে, নেপালি ভাষার জন্য রয়েছে ২ টো এবং সাওতালি ভাষার জন্য মোট শূন্য পদের সংখ্যা ২।

আবেদন করার শিক্ষাগত যোগ্যতা

বাংলা ভাষার ট্রান্সলেটরের জন্য – ভারত সরকার স্বীকৃতি যে কোন ইউনিভার্সিটি থেকে বাংলা অথবা ইংলিশে অনার্স ডিগ্রী অথবা সেকেন্ড ক্লাস মাস্টার ডিগ্রি থাকতে হবে। ইংলিশ থেকে বাংলাতে ট্রান্সলেট করার দক্ষতা থাকা প্রয়োজন। ডিজাইরেবেল কোয়ালিফিকেশন হিসেবে রিকগনাইজড ইউনিভার্সিটি থেকে law তে ডিগ্রী থাকতে হবে।

নেপালি ভাষার ট্রান্সলেটরের জন্য – ভারত সরকার স্বীকৃতি যে কোন ইউনিভার্সিটি থেকে নেপালি ভাষায় অনার্স ডিগ্রী অথবা সেকেন্ড ক্লাস মাস্টার ডিগ্রি থাকতে হবে। ইংলিশ থেকে নেপালি ভাষায় ট্রান্সলেট করার দক্ষতা থাকা প্রয়োজন। ডিজাইরেবেল কোয়ালিফিকেশন হিসেবে রিকগনাইজড ইউনিভার্সিটি থেকে law তে ডিগ্রী থাকতে হবে।

সাঁওতালি ভাষার ট্রান্সলেটরের জন্য – ভারত সরকার স্বীকৃতি যে কোন ইউনিভার্সিটি থেকে সাঁওতালি ভাষায় অনার্স ডিগ্রী অথবা সেকেন্ড ক্লাস মাস্টার ডিগ্রি থাকতে হবে। ইংলিশ থেকে সাঁওতাল ভাষায় ট্রান্সলেট করার দক্ষতা থাকা প্রয়োজন। ডিজাইরেবেল কোয়ালিফিকেশন হিসেবে রিকগনাইজড ইউনিভার্সিটি থেকে law তে ডিগ্রী থাকতে হবে।

বয়সের পরিমান

01/01/2023 অনুসারে, প্রার্থীর বয়স ৩৯ বছরের বেশি হলে হবে না. ভারত সরকারের নিয়ম অনুসারে চাকরি প্রার্থীরা ৫ ও ৩ বছরের বয়সের ছাড় পেয়ে থাকে।

নিয়োগ পদ্ধতি

দুটি স্টেজে প্রার্থীদের যোগ্যতা যাচাই করা হয়ে থাকে। প্রথমত লিখিত পরীক্ষা (mcq type)। যে সমস্ত পরীক্ষার্থী এই লিখিত পরীক্ষায় কোয়ালিফাই করে, তাদেরকে ইন্টারভিউয়ের জন্য ডাকা হয়। লিখিত পরীক্ষা এবং ইন্টারভিউয়ে পাওয়ার নাম্বারের ভিত্তিতেই ফাইনাল মেরিট লিস্ট প্রস্তুত করা হয়।

আবেদন পদ্ধতি

প্রার্থীদের পশ্চিমবঙ্গ পাবলিক সার্ভিস কমিশনের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটের মাধ্যমে অনলাইন পদ্ধতিতে আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে। আগামী ৩০ শে সেপ্টেম্বর থেকে অনলাইন আবেদন শুরু হবে।

অ্যাপ্লিকেশন ফি

ST, SC, PwBD ক্যান্ডিডেট ব্যতীত সমস্ত প্রার্থীদের আবেদন ফ্রি বাবদ ১৬০ টাকা করে জমা করতে হয়। ST, SC, PwBD প্রার্থীদের এই পদে আবেদন করার ক্ষেত্রে কোন প্রকার আবেদন ফী জমা করতে হয় না।

গুরুত্বপূর্ণ তারিখ

অনলাইন আবেদন শুরু হবে – ৩০/০৯/২০২৩. আবেদনপত্র জমা দেওয়ার অন্তিম তারিখ – ২৪/১০/২০২৩.

Official Website – Click Here

Official Notification PDF – Click Here

Join Our Telegram groupClick Here

Join Our Whatsapp GroupClick Here

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here